বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মাটিকাটার রাস্তা উদ্বোধন ও পরিদর্শন করেন,  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক আল মাসুদ বগুড়া জেলা অ্যাড.বার সমিতির নির্বাচনে মতিন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বাছেদ নির্বাচিত ঝিনাইগাতীতে বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত  তথ্য গোপন করে বাংলাদেশ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট দখলের চেষ্টা, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অস্বচ্ছ শিক্ষার্থীর পাশে ছাত্রলীগ নেতা জাফর প্রতিবন্ধীর অটো রিক্সা চুরি বগুড়ায় খুন, অস্ত্র ও মাদকসহ একাধিক মামলার আসামী শ্রী জুয়েল চন্দ্র ওরফে হাড়ী জুয়েল গ্রেফতার বগুড়ায় নবান্ন উৎসব উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী মহাস্থানে মাছের মেলা ঝিনাইগাতীতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ উদ্ধোধন বগুড়া জিয়া মেডিকেল থেকে চুরি যাওয়া নবজাতক গাজীপুর থেকে উদ্ধার

বগুড়ার ধুনটে বাসর ঘরে নববধূ কে ধর্ষন, দুলাভাই গ্রেফতার

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২২
  • ১৫৫ ভিউ টাইম

মিলন হোসেন / ষ্টাফ রিপোর্টার :

বগুড়া ধুনট উপজেলায় স্বামীর সহযোগীতায় বাসরঘরে তার দুলাভাই এক নববধূকে একাধিক বার ধর্ষনের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর বাবা বাদি হয়ে শুক্রবার ২২ এপ্রিল রাত সাড়ে ১১টার দিকে থানায় এসে মামলা দায়ের করেন।

এই মামলার প্রধান আসামী সিরাজগঞ্জ সদরের ভুরভুড়িয়া গ্রামের রোস্তম আলীর ছেলে আলমগীর হোসেনকে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার ২৩ মার্চ সকালের দিকে ধুনট থানা থেকে আদালতের মাধ্যমে তাকে বগুড়া জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এদিকে শুক্রবার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার নববধূ (১৮) ধুনট উপজেলার বিশ্বহারিগাছা গ্রামের এক কৃষকের মেয়ে। একই এলাকার সরোয়া-পাঁচথুপি গ্রামের ফেরদৌস আলমের ছেলে মানসিক প্রতিবন্ধী ফরিদুল ইসলামের সাথে ২৩ মার্চ মেয়েটির বিয়ে হয়। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ওই রাতেই নববধূকে তার বাবার বাড়ি থেকে নিজের বাড়িতে নেয় বরপক্ষ।

পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে নববধূ ও তার স্বামী ফরিদুল বাসরঘরে প্রবেশ করে। এ সময় ফরিদুলের ভগ্নিপতি আলমগীর হোসেন সরবতের সাথে ঘুমের ঔষধ মিশিয়ে নববধূকে পান করায়। কিছুক্ষণ পর বাসরঘরের বিছানায় ঘুমিয়ে পড়ে নববধূ। পরে ফরিদুলের সহযোগীতায় আলমগীর হোসেন সকাল পর্যন্ত নববধূকে একাধিক বার ধর্ষণ করে। পরের দিন (২৪ মার্চ) সকাল ৬টার দিকে নববধূ ঘুম থেকে উঠে দেখে আলমগীর হোসেন তাকে জড়িয়ে ধরে ঘুমিয়ে আছে। আর তার স্বামী ফরিদুল ইসলাম একই ঘরের পাশের বিছানায় ঘুমিয়ে আছে।

নববধূ এ বিষয়টি তার স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে জানালে তারা কোন কর্তপাত করেনি। উল্টো নববধূকে তারা মারধর করে। এ অবস্থায় ২৫ মার্চ রাতেও একই কৌশল অবলম্বন করতে থাকে আলমগীর হোসেন। তখন টের পেয়ে নববধূ তার বাবাকে মোবাইল ফোনে ঘটনাটি খুলে বললে স্বামীর বাড়ি থেকে তার বাবা তাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায়। ওই মামলায় আলমগীর হোসেন, নববধূর স্বামী ফরিদুল ইসলাম ও শ্বশুর-শাশুড়িকে আসামী করা হয়েছে।

ধুনট থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, মামলার প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরী আরো খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

Developed By VorerSokal.Com
newspapar2580417888