বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
দুপচাঁচিয়ায় ভাগ্নিকে ধ র্ষণের অ ভিযোগে খালু গ্রে ফতার উপজেলা নির্বাচন ২০২৪ নোয়াখালী,বেগমগঞ্জ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও শহীদ কামারুজ্জামানের সমাধীতে আরসিআরইউ’র শ্রদ্ধা বগুড়ার সেরা ফটোগ্রাফার হিসেবে আইফোন জিতলেন আরিফ শেখ দুপচাঁচিয়ায় জোহাল মাটাইয়ে ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন রাজশাহী কলেজ শিক্ষার্থীদের ভাবনায় গৌরবদীপ্ত বিজয় দিবস বর্ণাঢ্য আয়োজনে বগুড়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন ফাঁপোর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মেহেদী হাসান বগুড়ায় টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের ক্যান্সার সেন্টার পরিদর্শন দুপচাঁচিয়ায় বিউটি পার্লারে অভিযান জরিমানা

নওগাঁর বদলগাছীতে গ্রাম পুলিশের ধর্ষণে মাদ্রাসাছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৪ জুন, ২০২০
  • ৩০৮ ভিউ টাইম

নওগাঁর বদলগাছীতে গ্রাম পুলিশের ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে এক মাদ্রাসাছাত্রী। ঘটনার পর তার গর্ভের সন্তান নষ্ট করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে ওই ছাত্রী।

অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ বাবুল হোসেন ফেলু উপজেলার পাহাড়পুর ইউনিয়নে দায়িত্বরত এবং একই ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের বাসিন্দা। আর ভুক্তভোগী স্থানীয় একটি মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্রী। গ্রাম পুলিশ বাবুল তার প্রতিবেশী সম্পর্কে চাচা হন।

ভুক্তভোগীর পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ছাত্রীটির পরিবারটি গরিব। আর এ সুযোগে ভুক্তভোগীকে প্রতিবেশী গ্রাম পুলিশ বাবুল হোসেন ফেলু বিয়ের প্রলোভনে একাধিকার ধর্ষণ করেন। এতে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে ওই কিশোরী। এদিকে গর্ভধারণের পর মাদ্রাসাছাত্রী বিয়ের কথা বললে কোনো সাড়া দিতেন না বাবুল।

১১ জুন বিয়ে করবে বলে তাকে জয়পুরহাট জেলায় নিয়ে যান বাবুল। সেখান এক বাড়িতে হাতুড়ে চিকিৎসকের দ্বারা তার গর্ভপাত করান। ঘটনা ধামাচাপা দিতে এবং মীমাংসার জন্য চাপ দিতে থাকেন অভিযুক্ত। এরপরও বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

পরে গত শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় সালেম মোহাম্মদ, আজিজার এবং অভিযুক্তের বড় ভাই সাইদুল হোসেন মেলেটারি ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা দিয়ে ভুক্তভোগীর পরিবারের সঙ্গে সমঝোতার জন্য প্রস্তাব দেন বলে জানা যায়। কিন্তু ভুক্তভোগীর পরিবার সমঝোতা মানতে নারাজ। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ বাবুল হোসেন ফেলু এলাকায় নেই।

ভুক্তভোগী মাদ্রাসাছাত্রী অভিযোগ করে জানায়, বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তার সঙ্গে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেন প্রতিবেশী বাবুল হোসেন ফেলু। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর বিয়ের জন্য তাকে বার বার বলার পরও কোনো সাড়া মিলত না। অবশেষে গর্ভের সন্তান নষ্ট করলে তাকে বিয়ে করবে বলে জানানো হয়। ১১ জুন জয়পুরহাট জেলায় এক হাতুড়ে ডাক্তারের বাড়িতে নিয়ে যায়। পরদিন শুক্রবার (১২ জুন) গর্ভের সন্তান নষ্ট করা হয়। কিন্তু এখন আর বিয়ে করেত চাচ্ছে না বাবুল। উল্টো বিভিন্নভাবে তার পরিবার হুমকি দিচ্ছে।

অভিযুক্তের বড় ভাই সাইদুল হোসেন মেলেটারি বলেন, উদ্দেশ্যমূলকভাবে তার ভাইকে ফাঁসানো হচ্ছে। কিছু টাকা নেয়ার জন্য আমাদের বিরুদ্ধে গুজব রটানো হচ্ছে।

পাহাড়পুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বলেন, ওই গ্রাম পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কিনা জানা নেই। তবে আরও কয়েকজন ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে শুনেছি। ওই গ্রাম পুলিশ যদি জড়িত থাকে তাহলে পরিষদের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

বদলগাছী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চৌধুরী জোবায়ের আহম্মদ বলেন, শনিবার (১৩ জুন) রাতে ভুক্তভোগীর মা বাদী হয়ে বাবুল হোসেন ফেলুকে আসামি করে মামলা করেছেন।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরী আরো খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

Developed By VorerSokal.Com
newspapar2580417888