শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৫:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দুপচাঁচিয়ায় ভাগ্নিকে ধ র্ষণের অ ভিযোগে খালু গ্রে ফতার উপজেলা নির্বাচন ২০২৪ নোয়াখালী,বেগমগঞ্জ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও শহীদ কামারুজ্জামানের সমাধীতে আরসিআরইউ’র শ্রদ্ধা বগুড়ার সেরা ফটোগ্রাফার হিসেবে আইফোন জিতলেন আরিফ শেখ দুপচাঁচিয়ায় জোহাল মাটাইয়ে ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন রাজশাহী কলেজ শিক্ষার্থীদের ভাবনায় গৌরবদীপ্ত বিজয় দিবস বর্ণাঢ্য আয়োজনে বগুড়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন ফাঁপোর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মেহেদী হাসান বগুড়ায় টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের ক্যান্সার সেন্টার পরিদর্শন দুপচাঁচিয়ায় বিউটি পার্লারে অভিযান জরিমানা

ভোলা-চরফ্যাশনে জাতীয় জন্ম নিবন্ধন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪০৯ ভিউ টাইম

ভোলা জেলা প্রতিনিধিঃ ভোলা-চরফ্যাশনে জাতীয় জন্ম নিবন্ধন দিবস-২০২০ উদযাপন উপলক্ষে চরফ্যাশন উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ প্রশাসনিক ভবন হলরুমে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়৷

মঙ্গলবার (৬অক্টোবর) সকাল ১০ টায় “নাগরিক অধিকার করতে সুরক্ষণ, ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় চরফ্যাশন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন আখন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রিপন বিশ্বাস, কুকরি মুকরি ইউপি চেয়ারম্যান ও চরফ্যাশন প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল হাসেম মহাজন, পৌর আওয়ামী লীগ ও চরফ্যাশন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মনির আহমেদ শুভ্র, পৌর প্যানেল মেয়র আব্দুজ্জাহের ভূঁইয়া, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সচিব, উদ্যোক্তা এবং সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন৷

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন,জন্মের পর সরকারি খাতায় প্রথম নাম লেখানোই জন্ম নিবন্ধন। একটি শিশুর জন্ম নিজ দেশকে, বিশ্বকে আইনগতভাবে জানান দেয়ার একমাত্র পথ জন্মের পর জন্মনিবন্ধন করা। নবজাতকের একটি নাম ও একটি জাতীয়তা নিশ্চিত করতে এটি হচ্ছে প্রথম আইনগত ধাপ। জন্ম নিবন্ধন প্রতিটি শিশুসহ বয়স্কদেরও একটি অধিকার। এটি নাগরিক অধিকারের পর্যায়ে পড়ে। পৃথিবীতে একটি শিশু জন্মানোর পর রাষ্ট্র থেকে প্রথম যে স্বীকৃতি সে পায় সেটি হলো জন্ম নিবন্ধন। দেশের অন্যান্য নাগরিকের সাথে সে সমান অধিকারে এক কাতারে সামিল হয় এই জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে।

উল্লেখ্য ১৮৭৩ সালের ২রা জুলাই বৃটিশ সরকার অবিভক্ত বাংলায় জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত আইন জারি করেন। এরপর ২০০১ -২০০৬ সালে ইউনিসেফ- বাংলাদেশ এর সহায়তায় পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে ২৮টি জেলায় ও ৪টি সিটি কর্পোরেশনে জন্ম নিবন্ধনের কাজ নতুন করে শুরু হয়।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরী আরো খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

Developed By VorerSokal.Com
newspapar2580417888