শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৫:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দুপচাঁচিয়ায় ভাগ্নিকে ধ র্ষণের অ ভিযোগে খালু গ্রে ফতার উপজেলা নির্বাচন ২০২৪ নোয়াখালী,বেগমগঞ্জ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও শহীদ কামারুজ্জামানের সমাধীতে আরসিআরইউ’র শ্রদ্ধা বগুড়ার সেরা ফটোগ্রাফার হিসেবে আইফোন জিতলেন আরিফ শেখ দুপচাঁচিয়ায় জোহাল মাটাইয়ে ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন রাজশাহী কলেজ শিক্ষার্থীদের ভাবনায় গৌরবদীপ্ত বিজয় দিবস বর্ণাঢ্য আয়োজনে বগুড়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন ফাঁপোর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মেহেদী হাসান বগুড়ায় টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের ক্যান্সার সেন্টার পরিদর্শন দুপচাঁচিয়ায় বিউটি পার্লারে অভিযান জরিমানা

বন্ধ হোক অভিসপ্ত যৌতুক প্রথা

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৭০ ভিউ টাইম

সোবাহান সৈকত, সদরপুর(ফরিদপুর)থেকে

প্রত্যেক নারী পুরুষের নতুন জীবন শুরু হয় বিয়ে বা শাদী নামক বন্ধনের
মধ্য দিয়ে।
অনেক আশা আকাঙ্ক্ষা নিয়ে দুটি নারী পুরুষের নতুন জীবন শুভহোক
এমনটাই আশা করে আত্বিয়,স্বজন,পাড়া প্রতিবেশীরা। জানায় শুভকামনা।
তবে সবকিছু শুভ দিয়ে শুরু হলেও একটা বিষয় কিন্তু শুভ দিয়ে শুরু হলেও শেষ হয় অভিসাপ দিয়ে। সেটাই যৌতুক। এই যৌতুক একটা অভিশাপ হয়ে লেগে আছে আমদের জীবনের জলজ্যন্ত বাস্তবতার সাথে।
এই যৌতুক প্রথমে আসে দাবী বা আবদার হিসেবে। অল্প কিছুদিন পড়েই রুপ নেয় পাওনা হিসেবে।
আরো দেরি হলে এই যৌতুক তার নাম পালটিয়ে রুপনেয় নির্যাতন, নিপিড়ন, অত্যাচার, পাশবিকতা,নির্মমতা,ভয়াবহতা, নৃশংশতা তারপর,,,, হত্যা। সবশেষে অতি পরিকল্পিত ভাবে আত্বহত্যা বলে প্রচার করা।
এটাই যৌতুক প্রথার চিরন্তন বাস্তবতা।
নানী দাদীদের কাছে শুনেছি তাদের আমলে বিয়ে হয়েছে নির্দিষ্ট পণ দিয়ে। আর আমাদের আমলে যৌতুক নামক ভয়াবহতার কাছে পরাজিত হচ্ছে কত স্বপ্ন, কত আশা।
আমরা যৌতুক নিচ্ছি মহাআনন্দে, ভাবছিনা আমার মেয়ের বিয়ের সময় আমাকেও যৌতুক দিতে হবে।
এই যৌতুক এর জন্য কত শিশু অকালে হারিয়েছে তার মাকে। কত বাবামা হারিয়েছে তার কন্যাকে। ভাই হারিয়েছে তার বোনকে। আরো কত কি। কত নববধূকে যৌতুকের কারণে মুখে বিষঢুকিয়ে হত্যা করে আত্বহত্যা বলে প্রচার করছে স্বামী। যৌতুকের কারণে ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যা করে বাড়ীর পিছনের আমগাছের ডালের সাথে ঝুঁলিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্বহত্যা করেছে বলে প্রচারে ব্যস্ত শশুড় বাড়ীর লোকজন। মোটরসাইকেল কিনে দেওয়ার কথা ছিল, দেয়নি। এই অপরাধে এক সন্তানের মাকে পুড়িয়ে হত্যা করে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে মারা গেছে বলে অপপ্রচারে লিপ্ত দেবর, ননদ, আত্বিয় স্বজন। কি বিভৎস। কি মর্মান্তিক। কি ভয়াবহ।।

বহুদিন ধরে যৌতুক প্রথা আমাদের সাথে লেগেই আছে। কিছুতেই যেন আমরা এই অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে পারছিনা কিন্তু কেন? দেশে যৌতুক বিরোধী আইন আছে কিন্তু তার যথাযথ কার্যকরী পদক্ষেপ বাস্তবায়িত হচ্ছে কতটুকু।

যৌতুকের বিরোধী আইনের সাথে সাথে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে আমাদের সবাইকে। কঠোর ভাবে প্রতিহত করতে হবে যৌতুক নামক প্রথাকে।তাহলেই হয়তো আমরা মুক্ত হতে পারবো এই অভিসাপ থেকে।।
যৌতুক নেবনা, যৌতুক দেবনা
এটাই হোক আমাদের নতুন বছরের অঙ্গীকার।।।

শুভ নববর্ষ ২০২১ইং

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরী আরো খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

Developed By VorerSokal.Com
newspapar2580417888