শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:১৪ অপরাহ্ন

অধ্যক্ষের সহায়তায় স্বপ্ন পূরণ হলো রনির

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৮ ভিউ টাইম

রাজশাহী প্রতিনিধি: দেশ সেরা রাজশাহী কলেজে। একাদশ শ্রেণিতে এখানে ভর্তি অনেকটাই সোনার হরিণ। সুযোগ পেয়েও কলেজে ভর্তি হতে পারছিলোনা মেধাবী শিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম রনি।

মাত্র ৫ হাজার টাকা না থাকায় রোববার কলেজে ভর্তি হতে এসে ফিরে যেতে হয় তাকে।

এনিয়ে সোমবার বিভিন্ন গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশে মুহূর্তেই সে খবর ভাইরাল হয়ে যায়। দেশ-বিদেশ থেকে রনিকে সহায়তার জন্য যোগাযোগ করেন হৃয়বানরা।

এই খবরে চোখ আটকায় রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমানের। তিনি দুপুরের দিকে রনিকে ডেকে নেন নিজ দপ্তরে।

তাৎক্ষনিকভাবে তার ভর্তির ব্যবস্থা করেন। তাকে সাধ্যমত সহায়তারও আশ্বাস দেন মানবিক এই অধ্যক্ষ। ওই সময় কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোহা. আব্দুল খালেক উপস্থিত ছিলেন।

রবিউল ইসলাম রনি নওগাঁর মান্দা উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের অনাথ শিমলা এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলে। দীর্ঘদিন ধরেই তার বাবা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে পথে পথে ঘুরছেন। স্বামী-সংসার নিয়ে চিন্তায় ভারসাম্য হারিয়েছেন মা রহিমা বিবিও।

নানান টানাপোড়েনের ভেতরেই উপজেলার কালীগ্রাম দোডাঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে রনি এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। অনলাইন ভর্তি প্রক্রিয়ায় আবেদন করে রাজশাহী কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য বিবেচিত হয়েছে রনি।

রোববার থেকে একাদশ শ্রেণিতে শুরু হয়েছে ভর্তি প্রক্রিয়া। খবর পেয়ে ওই দিনই প্রতিবেশী সোহেল রানার সহায়তায় রাজশাহী পৌঁছায় রনি। ভর্তির জন্য কাগজপত্র নিয়ে কলেজেও যায়। কিন্তু ভর্তির জন্য নির্ধারিত খরচ জোগাড় না হওয়ায় ফিরে আসতে হয় খালি হাতে।

স্বপ্নের কলেজে ভর্তি হতে পেরে আবেগাপ্লুত রবিউল ইসলাম রনি। সে জানায়, তার আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ। এই বিবেচনায় সে ধরেছিলো, তাকে বাড়িতে থেকেই হয়তো গ্রামের কোন একটা কলেজে পড়তে হবে।

কিন্তু কার স্বপ্ন পুরণ হচ্ছে। রাজশাহী কলেজে ভর্তির দায়িত্ব ব্যবস্থা হয়ে গেছে। অধ্যক্ষ স্যার ডেকে তার ভর্তির ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। মঙ্গলবার ভর্তি প্রুক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

কষ্ট করে পড়াশোনা করে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে চায় রনি। স্বপ্ন পুরণের এই ধাপে সহায়তা করায় সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানায় সে।

রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান বলেন, শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আসল মানদন্ড হলো আমাদের যারা শিক্ষার্থী, আমরা তাদের কল্যাণে কতটুকু কি করছি।

রাজশাহী কলেজ শ্রেষ্ঠ মানে সবাইকে নিয়েই শ্রেষ্ঠ, সাধারণ শিক্ষার্থী, শিক্ষক, ছাত্রনেতা সবাই এই শ্রেষ্ঠত্বের অংশীদার।

আমরা চাই, অর্থের অভাবে দরিদ্র ঘরের সন্তান যেন শিক্ষা থেকে বঞ্চিত না হয়। তার লেখাপড়ার খরচ রাজশাহী কলেজ বহণ করবে।

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরী আরো খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

Developed By VorerSokal.Com
newspapar2580417888