মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৭:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দুপচাঁচিয়ায় ভাগ্নিকে ধ র্ষণের অ ভিযোগে খালু গ্রে ফতার উপজেলা নির্বাচন ২০২৪ নোয়াখালী,বেগমগঞ্জ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও শহীদ কামারুজ্জামানের সমাধীতে আরসিআরইউ’র শ্রদ্ধা বগুড়ার সেরা ফটোগ্রাফার হিসেবে আইফোন জিতলেন আরিফ শেখ দুপচাঁচিয়ায় জোহাল মাটাইয়ে ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন রাজশাহী কলেজ শিক্ষার্থীদের ভাবনায় গৌরবদীপ্ত বিজয় দিবস বর্ণাঢ্য আয়োজনে বগুড়ায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত আর্থিক সহায়তা প্রদান করলেন ফাঁপোর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মেহেদী হাসান বগুড়ায় টিএমএসএস মেডিকেল কলেজের ক্যান্সার সেন্টার পরিদর্শন দুপচাঁচিয়ায় বিউটি পার্লারে অভিযান জরিমানা

আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে সত্যিকারের মুমিন হওয়া যায়

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯
  • ১১৭৮ ভিউ টাইম

সত্যিকারের মুমিন হওয়া যায় আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে। আত্মশুদ্ধির চর্চা মানুষকে মানবিক ভুলত্রুটি থেকে মুক্ত থাকতে সাহায্য করে। মানুষের মধ্যে যে হীনমন্যতা থাকে তা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখার সর্বোৎকৃষ্ট পথ হলো আত্মশুদ্ধি। আল কোরআনে বান্দাকে তার নিজের প্রয়োজনে আত্মশুদ্ধির তাগিদ দেওয়া হয়েছে। সূরা ফাতিরের ১৮ নম্বর আয়াতে ইরশাদ হয়েছে, ‘কেউ যখন আত্মশুদ্ধি করে সে তো তা করে তার নিজের জন্যই।’ আত্মশুদ্ধিকে বলা হয় মানবচরিত্র সংশোধন ও শুদ্ধ পথে নিয়ে যাওয়ার শ্রেষ্ঠতর উপায়। ইবাদতের মূল লক্ষ্য হলো আত্মাকে শুদ্ধ করা। মানুষের মাঝে যেসব খারাপ অভ্যাস রয়েছে, যেসব হীনমন্যতা রয়েছে তা ত্যাগ করা। নামাজ, রোজা, জাকাতের লক্ষ্য এ ক্ষেত্রে অভিন্ন। মহান আল্লাহ আদম-হাওয়াকে সৃষ্টির পর বেহেস্তে ঠাঁই দেন। মানুষ শয়তানের প্ররোচনায় পড়ে আল্লাহর বারণ অমান্য করে নিষিদ্ধ বৃক্ষের নিকটবর্তী হলে তাদের পৃথিবীতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় হজরত আদম (আ.) তাঁর পাপের জন্য সর্বশক্তিমানের দরবারে বিনীতভাবে ক্ষমা চান। বলেন, ‘হে আমাদের প্রতিপালক! আমরা আমাদের আত্মার প্রতি জুলুম করেছি। তুমি আমাদের ক্ষমা না করলে এবং আমাদের প্রতি দয়া না করলে অবশ্যই আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে পড়ব।’ সূরা আরাফ, আয়াত ২৩। মানুষ পাপাচারের মাধ্যমে আত্মাকে কলুষিত করে। আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে আত্মাকে কলুষমুক্ত করা যায়। আল্লাহর প্রতি ভয় তথা তাকওয়ার গুণ অর্জনের মাধ্যমে আমরা আত্মশুদ্ধির কাক্সিক্ষত পথে যেতে পারি। আল কোরআনের সূরা আশ শামসের ৯ ও ১০ নম্বর আয়াতে মুমিনদের আত্মশুদ্ধিতে উদ্বুদ্ধ করে বলা হয়েছে, ‘সে-ই সফলকাম হবে যে নিজেকে পবিত্র করবে এবং সে-ই ব্যর্থ হবে যে নিজেকে কলুষাচ্ছন্ন করবে।’ জাগতিক ও আখিরাতের জীবন সফলভাবে গড়ে তুলতে হলে নিজেকে সব ক্ষেত্রে শুদ্ধ করার দিকে নজর দিতে হবে। মহান ও পবিত্র সত্তা আল্লাহর সন্তুষ্টিবিধানে শুদ্ধাচারী হওয়ার কোনো বিকল্প নেই। এ উদ্দেশ্যে সব ক্ষেত্রে নিজের মনকে আল্লাহমুখী করতে হবে। আত্মসমালোচনার মাধ্যমে নিজের সব ভুলত্রুটি শোধরাতে হবে। আত্মাকে সব ধরনের পাপাচারের অত্যাচার থেকে মুক্ত রাখতে হবে। আল্লাহতে নিঃশর্ত আত্মসমর্পণ করে শুদ্ধাচারী কৃতজ্ঞ মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে। মহান আল্লাহ আমাদের আত্মাকে শুদ্ধ করার তাওফিক দিন।

লেখক : ইসলামবিষয়ক গবেষক

দয়াকরে নিউজটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরী আরো খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।

Developed By VorerSokal.Com
newspapar2580417888